করোনায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষকে সচেতন করতে ছুটে বেড়াচ্ছে মোতালিব

ফতুল্লা করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:০৩ পিএম, ২২ এপ্রিল ২০২০ বুধবার

করোনায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষকে সচেতন করতে ছুটে বেড়াচ্ছে মোতালিব

নিজের এবং পরিবারের কথা চিন্তা না করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনায় মানুষকে সচেতন করতে দিন রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন মো: মোতালিব মিয়া। সরকার ও স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশ মোতাবেক মানুষকে চলার জন্য আহবান করছেন। অহেতুক কেউ যেন রাস্তায় বের না হয় এবং সবাইকে ঘরে থাকার জন্য হেন্ড মাইক দিয়ে এই প্রান্ত থেকে ওই প্রান্তে এবং অলিগলিতে ছুটাছুটি করে সচেতন করছে। নিঃস্বার্থে গত এক মাস ধরে সচেতনমূলক এ কাজ করছেন মোতালিব মিয়া। তার হাতে একটি লাঠি, একটি বাশি, মুখে মাক্স ও হ্যান্ড মাইক নিয়ে মানুষকে সচেতন করার জন্য পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার হরিহরপাড়া আমতলা এলাকার সাধারণ এক ব্যবসায়ী নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে হাজার হাজার মানুষের করোনা ভাইরাস থেকে নিরাপদে রাখতে মোতালিব মিয়া সচেতন মুলক স্বেচ্ছাসেবকের এ কাজ করছেন।

মোতালিবের সাথে কথা বলে জানা যায়, সে তিন মেয়ে দুই ছেলে ও স্ত্রী নিয়ে হরিহরপাড়া আমতলা এলাকায় বসবাস করে। তার আমতলায় একটি ছোট খাটো ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে জীবিকা নির্বাহ করেন। সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাসে মহামারী হওয়ার পর বাংলাদেশেও প্রতিনিয়ত হু হু করে বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর করোনা নারায়ণগঞ্জ হটস্পট ঘোষণা করার পর নারায়ণগঞ্জবাসীর মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। আর তখন থেকে চিন্তা করি জনসমাগম দুর করতে মানুষকে ঘরমুখী করতে হবে। যার কারণে নিজের এবং পরিবারের কথা চিন্তা না করে নিজ এলাকার মানুষকে সচেতন করতে ঘর থেকে বের হয়ে গেলাম।

মোতালিব জানান, প্রতিদিন সকাল বেলা যখন ঘুম ভেঙ্গে যায় তখন চিন্তা করি করোনা ভাইরাসকে ভয় না পেয়ে এলাকার লোকজন রাস্তায় বের হয়ে যাচ্ছে মনে হয়। আর আমাদের এলাকার লোকজন বিপদগামী হচ্ছেন। তাদেরকে বাঁচাতে হবে। এলাকার জনগনের কথা চিন্তার নিজের জীবনের কথা চিন্তা না করে সকাল সকাল ঘর থেকে বের হয়ে যাই মানুষকে একটু সচেতন করতে। আমার একটু পরিশ্রমে যদি আমার এলাকার হাজার হাজার লোক একটু সচেতন হয় করোনা থেকে মুক্তি পাবে। তাহলে মনে করবো আমার পরিশ্রম সার্থক হবে।

তার পরিবার স্বচ্ছল না থাকা সত্বেও পরিবারের কথা চিন্তা না করে কেন সাধারণ জনগনকে সচেতন করতে ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন এমন প্রশ্ন করলে মোতালিব বলেন, আমার একটু চেষ্টায় যদি শত শত লোকজন করোনা থেকে মুক্তি পায় তাহলে আমি দুনিয়াতে কিছু না পেলেও পরকালে তো কিছু না কিছু পাবো। আর নিজের সংসার আল্লাহ চালাবেন। আর সরকার যদি আমার দিকে একটু সু-নজর দেয় সেই প্রত্যাশা করেন তিনি।

এদিকে মোতালিব একটি লাঠি, একটি বাশি, মুখে মাক্স ও হ্যান্ড মাইক নিয়ে ফতুল্লার হরিহরপাড়া, আমতলা, শীষমহল এলাকার রাস্তা সহ অলিগলিতে বাঁশি বাজিয়ে মানুষকে ঘরে যাওয়ার সতর্ক করছে এবং হ্যান্ড মাইক দিয়ে করোনার ভাইরাস ভয়ংকর তা মানুষকে বুজান। আপনি ঘরে থাকেন নিজে বাচেন সবাইকে বাঁচান সহায়তা করেন। অহেতুক ঘর থেকে বের হবেন না। এ ধরনের কথা বলে মোতালিব মানুষকে সচেতন করছেন। আর লকডাউন মেনে চলার জন্য মহল্লার দোকান গুলো সীমিত আকারে খোলার আহবান করেন। আর চায়ে দোকান না খোলার পরামর্শ দেন।


বিভাগ : ফিচার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও