নিউজ নারায়ণগঞ্জকে আইভী : ৩০০ শয্যা হাসপাতালে অচিরেই ল্যাব


স্পেশাল করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৩:৩১ পিএম, ১৯ এপ্রিল ২০২০, রবিবার
নিউজ নারায়ণগঞ্জকে আইভী : ৩০০ শয্যা হাসপাতালে অচিরেই ল্যাব

নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুর এলাকার ৩০০ শয্যা হাসপাতালেই হতে যাচ্ছে করোনা ভাইরাস নির্ণয়করণ পরীক্ষা কেন্দ্র (ল্যাব)। যার ফলে এখন আর কাউকে ঢাকা থেকে রিপোর্ট আসার জন্য অপেক্ষা করতে হবে না। দিনের পরীক্ষার রিপোর্ট দিনেই পাওয়া যাবে।

১৯ এপ্রিল রোববার দুপুরে মোবাইল ফোনে নিউজ নারায়ণগঞ্জকে এসব তথ্য জানান সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী যিনি করোনা পরীক্ষা কেন্দ্র স্থাপনের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে দাবি জানিয়ে ছিলেন।

এর আগে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলায় স্থানীয় এমপি গোলাম দস্তগীর গাজীর উদ্যোগে ল্যাব স্থাপনের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। যা খুব শিগ্রই কার্যক্রম চালু হবে।

উল্লেখ্য করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের দিক থেকে দেশের বিভিন্ন জেলার তুলনায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে নারায়ণগঞ্জ। এছাড়াও জেলা থেকে অন্য জেলায় গিয়েও ছড়িয়েছে করোনা সংক্রামণ। ফলে নারায়ণগঞ্জ জেলাকে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হলেও এখানে ছিল না কোন করোনা পরীক্ষা কেন্দ্র। ফলে দিনব্যাপী সন্দেহজনকদের পরীক্ষা করা হলেও রিপোর্টের জন্য এক থেকে দুইদিন অপেক্ষা করতে হতো। যার ফলে আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু করতেও অপেক্ষা করতে হতো। এমনকি সন্দেহজনক ব্যক্তিও প্রয়োজন চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হতো। এছাড়াও অনেকেই উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু বরণ করেছেন যাদের লাশ শেষকৃত্যের জন্য স্বজনরাও এগিয়ে আসেনি।

সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জকে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা ঘোষণা করা হয়েছে। যার মধ্যে সিটি করপোরেশন এলাকায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বেশি। ফলে দ্রুত চিকিৎসা দেওয়ার জন্য শহরেই একটি করোনা পরীক্ষা কেন্দ্র জরুরী প্রয়োজন। এজন্য প্রধানমন্ত্রী, স্বাস্থ্য মন্ত্রী সহ সকলের কাছে দাবি জানিয়েছি। তারা সকলেই জানিয়েছেন শহরেই করোনা পরীক্ষা কেন্দ্র হবে। আর সেটা ৩০০ শয্যা হাসপাতালকেই চিহ্নিত করা হয়েছে। এ হিসেবে ইতোমধ্যে ল্যাব করার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন। অচিরেই নারায়ণগঞ্জে করোনার পরীক্ষা শুরু হবে।’

নারায়ণগঞ্জবাসীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আমাদেরকে ঘরে থাকতে হবে। কোন ভাবেই করেনা ভাইরাস ছাড়ানোর সুযোগ দেওয়া যাবে না। সরকারি নির্দেশনা মেনে চলতে হবে।’

প্রসঙ্গত নারায়ণগঞ্জে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশী সদর উপজেলা ও সিটি করপোরেশন এলাকাতে। বাণিজ্যিক নগরী এ দুটি এলাকাতে দ্রুত করোনা ছড়িয়ে পড়লেও এখানে স্থাপন করা হয়নি কোন ল্যাব। এমপি শামীম ওসমানের উদ্যোগে শহরের নারায়ণগঞ্জ হাই স্কুল ও সিদ্ধিরগঞ্জের একটি স্কুলে বেসরকারীভাবে দুটি স্কুলে নমুনা সংগ্রহ করা হলেও ল্যাব স্থাপন না হওয়ায় পরীক্ষায় দেখা যাচ্ছে দীর্ঘসূত্রিতা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেই নারায়ণগঞ্জে ল্যাব না থাকায় বিষ্ময় প্রকাশ করেন।

এখানে উল্লেখ্য ১৬ এপ্রিল সকালে যখন প্রধানমন্ত্রী নারায়ণগঞ্জের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স করেন তখন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ও সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী কেউ ছিলেন না। উপস্থিত জনপ্রতিনিধিদের মধ্যে ছিলেন নজরুল ইসলাম বাবু যিনি নারায়ণগঞ্জ-২ তথা আড়াইহাজার আসনের এমপি। ওই আসনে ১৮ এপ্রিল পর্যন্ত কোন মৃত্যু হয়নি; আক্রান্ত হয়েছে ৮ জন

নারায়ণগঞ্জে করোনা আক্রান্তের হটস্পট হলেও এ শহর ও শহরতলীর মানুষ যে অবহেলিত সেটা আবারো প্রমাণিত হয়েছে। নারায়ণগঞ্জে শত শত কোটি টাকার মালিক, শিল্পপতি, চেম্বার অব কমার্স সহ জাতীয় ও স্থানীয় ব্যবসায়ী সংগঠন থাকলেও তারা যখন দৃশ্যমান অনাগ্রহ তখন রূপগঞ্জে ল্যাব বসানোর যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করে ফেলেছেন সেখানকার এমপি গোলাম দস্তগীর গাজী যিনি একই সঙ্গে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী।

ইতোমধ্যে রূপগঞ্জে ল্যাব স্থাপনের জন্য অনুমতিও দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। করোনা পরীক্ষার মেশিনসহ যাবতীয় সরঞ্জামও আনা হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে নিজস্ব অর্থায়নে ইতোমধ্যেই করোনা পরীক্ষার মেশিন পিসিআর কেনা হয়েছে। বিষয়টি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকও অবগত আছেন। তিনি এ ব্যাপারে উৎসাহিত করেছেন। ইউএস বাংলা হাসপাতালের সহযোগিতায় রূপগঞ্জের কাঞ্চন সেতু সংলগ্ন বেস্টওয়ে গ্রুপের নির্জন স্থানে এই ল্যাব স্থাপনের কাজ চলছে। আগামী ৪/৫ দিনের মধ্যেই যাবতীয় কাজ সম্পন্ন হবে। এই ল্যাবে ৩-৪ ঘণ্টার মধ্যে করোনা পরক্ষার ফল পাওয়া যাবে। সম্ভব হলে নারায়ণগঞ্জের আশপাশের জেলার মানুষের করোনাভাইরাস পরীক্ষাও করা হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
সাক্ষাৎকার এর সর্বশেষ খবর
আজকের সবখবর