করোনায় থমকে মসজিদের উন্নয়ন


স্টাফ করেসপনডেন্ট | প্রকাশিত: ০৮:৪৩ পিএম, ২০ মে ২০২০, বুধবার
করোনায় থমকে মসজিদের উন্নয়ন

পবিত্র মাহে রমজানের সিয়াম সাধনা কেন্দ্র করে প্রত্যেকটি মসজিদে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগে। কারণ এই মাসে বেশি নেকি আদায়ের লক্ষ্যে ধর্মপ্রাণ মুসল্লি সহ দানশীলরা বেশি মাত্রায় দান করে থাকে। প্রত্যেক রমজানে সবচেয়ে বেশি দান করা হয়ে থাকে যা দিয়ে মসজিদের সিংহভাগ উন্নয়ন হয়ে থাকে। তবে এ বছর প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের ফলে মসজিদে জামাতে নামাজ আদায়ের ব্যাপারে কঠোর নির্দেশনা রয়েছে। এরুপ প্রতিকুল পরিস্থিতিতে মসজিদের উন্নয়ন সহ সার্বিক বিষয়ে বড় ধরণের বাধার সম্মুখিন হতে যাচ্ছে। এরুপ শঙ্কায় মসজিদের ইমাম সহ সংশ্লিষ্টরা বেশ বিপাকে পড়েছে।

হেফাজতে ইসলামের সমন্বয়ক ও চিটাগাং রোড খানকাহ জামে মসজিদের খতিব মাওলানা ফেরদাউসুর রহমান বলেন, পবিত্র রমজান মাসে সবচেয়ে বেশি কালেকশন হয় যা দিয়ে প্রত্যেকটি মসজিদের উন্নয়ন কাজে ব্যয় করা হয়। কিন্তু এবার তা সম্ভব হবে বলে মনে হচ্ছেনা। কারণ পরিস্থিতি এখনো প্রতিকূলে রয়েছে। তবে বিত্তবানরা এগিয়ে আসলে এই সংকট কিছুটা হলেও দূর করা সম্ভব হবে।

তিনি বলেন, কওমি ঘরানার ইমামদের তালিকা অনুযায়ী এ জেলায় প্রায় ১০ হাজারের অধিক মসজিদে তারাবির নামাজ আদায় হয়। এছাড়া সুন্নি সহ অন্যান্য মতাদর্শের ইমামদের অধিনেও আরো অনেক মসজিদ আছে।

ভোলাইল আল আকসা জামে মসজিদের খতিব মুফতি ইসমাইল হোসেন সিরাজী বলেন, করোনা ভাইরাসে সৃষ্ট প্রতিকুল পরিস্থিতিতে এ বছর মসজিদের উন্নয়নও সেভাবে সম্ভব না। কারণ সবার পরিস্থিতি খারাপ কে কাকে দিবে। তবে বিত্তবানরা এগিয়ে আসলে উন্নয়ন সহ এই সংকট মোকাবেলা সম্ভব হবে।

তিনি বলেন, এ জেলায় মোট ২ হাজার ৬শ মসজিদ রয়েছে যেখানে জুম্মা ও খতমে তারাবির নামাজ আদায় হতো। এছাড়া জেলায় আরো অনেক মসজিদ রয়েছে যেখানে সুরা তারাবির নামাজ আদায় হয়ে থাকে। তবে এবার অধিকাংশ মসজিদে সুরা তারাবির নামাজ আদায় হবে বলে মনে হচ্ছে।

দেওভোগ মাদ্রাসা মসজিদের খতিব মুফতি হারুন অর রশিদ বলেন, এ বছর মসজিদের উন্নয়ন কাজ আগের মত করা সম্ভব হবেনা। কারণ করোনা পরিস্থিতির কারণে অনেকে ঘর থেকে বের হতে পারছেনা। তাছাড়া সবার আয়-উপার্জন বন্ধ হয়ে গেছে। যদিও এর মধ্যে অনেকে বিত্তবানরা এগিয়ে আসবেন বলে মনে করছি। তবে বিগত বছরগুলোর তুলনায় এবার মসজিদের উন্নয়ন তুলনামূলক কম হবে।

চাঁদমারী মোহাব্বত আলী শাহী জামে মসজিদের খতিব ও ইমাম মুফতি রহমত উল্লাহ বুখারি বলেন, এ বছর উন্নয়ন কাজে বিঘœ ঘটবে। কারণ এখন পর্যন্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়নি। তবে এলাকাবাসী সহ বিত্তবানরা এগিয়ে আসলে এই সংকট থাকবেনা।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
newsnarayanganj-video
আজকের সবখবর