রাতেও থেমে নেই কাউন্সিলর শকুর চাল বিতরণ

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৭:০৬ পিএম, ৩ এপ্রিল ২০২০ শুক্রবার

রাতেও থেমে নেই কাউন্সিলর শকুর চাল বিতরণ

রাতেও থেমে নেই কর্মহারা মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণে নাসিক ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শওকত হাসেম।

টানা দ্বিতীয় দিনেও রাত-দিনে নাসিক ১২নং ওয়ার্ডের চারটি মহল্লার করোনা ভাইরাসের কারণে কর্মহারা পরিবারদের মাঝে বাড়ি বাড়ি গিয়ে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি সেলিম ওসমানের নিজ তহবিল থেকে ১০ কেজি করে চাউল বিতরণ করে যাচ্ছেন নাসিক ১২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শওকত হাসেম শকু।

৩ এপ্রিল শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় নাসিক ১২নং ওয়ার্ডের বাগে জান্নাত মসজিদ এলাকা ও মিশনপাড়ায় জনসমাগম না ঘটেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে হতদরিদ্র মানুষদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ১০ কেজি করে চাল তুলে দিয়ে দ্বিতীয় দিনের কার্যক্রম শুরু করে। ২ এপ্রিল সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত এই চাউল বিতরণ করে যাচ্ছেন কাউন্সিলর শওকত হাসেম।

কাউন্সিলর শওকত হাসেম শকু জানান, ২ এপ্রিল প্রথম দিনে সকাল ১০টা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত খানপুর ব্রাঞ্চ রোড ও মহসিন ক্লাব এলাকার কর্মহারা পরিবারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে এমপি মুক্তিযোদ্ধা সেলিম ওসমান নিজ তহবিল থেকে পরিবার প্রতি ১০ কেজি করে চাল মাধ্যমে টানা কার্যক্রমের শুরু করা হয়। এমপি মহোদয় খুব আন্তরিক ও হৃদয়বান মানুষ। নাসিক ১২নং ওয়ার্ড তার নিজের ওয়ার্ড, তিনি যেভাবে আন্তরিকভাবে এলাকায় কর্মহীনদের প্রতি চাউল দিয়েছে সেগুলো বাস্তবায়নের চেষ্টা করে যাচ্ছি। কাল মিশনপাড়া, পরশু উত্তর চাষাঢ়া, পরেদিন চাঁদমারী ও ইসদাইর, এর পরের দিনর ডনচেম্বার এলাকায় দিন রাতে বিতরণ করা হবে।

উল্লেখ্য, এমপি সেলিম ওসমান নাসিকের শহর এলাকার অন্যতম ১২নং ওয়ার্ডের নোভেল করোনা ভাইরাসের প্রভাবে বেকার হয়ে দিশেহারা খেটে খাওয়া মানুষগুলো জন্য ৭ হাজার কেজি চাল পাঠানো হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে এমপি সেলিম ওসমানের নির্দেশনায় এলাকার হতদরিদ্র মানুষদের সেই অনুযায়ী প্রত্যেকের ঘরে ঘরে চাল পৌছে দেয়া হবে।

বিশ্বের মহামারী করোনা ভাইরাস যখন চিন্তিত, তখন এর রোগের প্রতিরোধে জনগণের কল্যাণে এগিয়ে এসেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শওকত হোসেন শকু। প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে একের পর এক নানা কর্মসূচি চালিয়ে ইতোমধ্যে মানুষের মুখে মুখে উঠে এসেছেন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নাসিক ১২নং ওয়ার্ডের জনগণের মাঝে ১৫ মার্চ থেকে হেক্সিসল, সাবান ও মাস্ক বিতরণ শুরু করেন। হ্যাক্সোসল, মাস্ক, সাবান ও চলমান যানবাহনে আমি স্প্রে করা শুরু করে। প্রায় সপ্তাহখানেক ধরে এই কাজ চলমান থাকে, তারপর দেখলাম করোনা ভাইরাসের কারণে খাবার ক্রাইসিস দেখা দিয়েছে। যার পরিপেক্ষিতে ২৬ মার্চ থেকে ১ এপ্রিল পর্যন্ত নিজ অর্থায়নে প্রতিদিন ৩০০ করে পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন। এর পাশাপাশি ১ এপ্রিল বুধবার সকাল শুরু করে বিকেল পর্যন্ত গাড়ির দুই দিকে দুই ফগার মেশিন বসিয়ে ১২ নং ওয়ার্ড জুড়ে মশার ওষুধ স্প্রে করা হয়। এ রকম ৫টি ফগার মেশিন দিয়ে স্প্রে করা হয়।

খাদ্য সামগ্রী বিতরণকালে ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শওকত হোসেন শকু বলেন, এই খাবারগুলো বিতরণ করা হয়েছে শুধুমাত্র যারা বেকারগ্রস্ত হয়েছে এবং যারা গরীব ও অসহায় পড়েছে। যে পর্যন্ত আমি সুস্থ আছি আল্লাহর রহমতে আমি মানুষের জন্য কাজ করে যাবো। তারই ধারাবাহিকতায় আজ আমি ফগার মেশিন মশার ওষুধ স্প্রে করেছি। এভাবে আমাদের নানা কার্যক্রম চলমান থাকবে।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও