ক্ষমতাসীনদের চেয়ে বিএনপি সক্রিয়

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৭:৩৭ পিএম, ২৬ মার্চ ২০২০ বৃহস্পতিবার

ক্ষমতাসীনদের চেয়ে বিএনপি সক্রিয়

সারাদেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে মরণঘাতি করোনা ভাইরাস। দিনের পর দিন এই করোনা ভাইরাসের আক্রমনের তীব্রতা বাড়তে শুরু করছে। সারাদেশের মতো নারায়ণগঞ্জেও করোনা করোনা ভাইরাসের আক্রমনের তীব্রতা বাড়তে শুরু করেছে। তবে এই করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে নারায়ণগঞ্জে ক্ষমতাসীনদের চেয়ে বেশি এগিয়ে রয়েছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। যদিও বিএনপির নেতাকর্মীরা জোরালোভাবে মাঠে নামতে পারেননি। তারপরেও তারা তুলনামূলকভাবে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের চেয়ে এগিয়ে রয়েছেন।

সূত্র বলছে, প্রাণঘাতি এক ভাইরাসের নাম হচ্ছে করোনা ভাইরাস। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলে রয়েছে মৃত্যুঝুঁকি। আর এই ভাইরাসটি খুব কম সময়ের মধ্যে এক জায়গা থেকে অন্য জায়াগায় স্থানান্তর করতে পারে। ইতোমধ্যে বিশে^র বিভিন্ন দেশে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন। এতদিন এই ভাইরাস বাংলাদেশের বাইরে থাকলেও এবার বাংলাদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে এই করোনা ভাইরাস। সরকারি হিসাব অনুযায়ী এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৪জন মারাও গিয়েছেন।

যার সূত্র ধরে নারায়ণগঞ্জে ৩৮ জনকে নতুনকে হোম কোয়ারেন্টাইন করা হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ১৮৬ জন। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ৩ জন। আর এসকল বিষয়কে কেন্দ্র করে জনসাধারনের মাঝে জনসচেতনা সৃষ্টি করা খুবই জরুরি। একমাত্র জনসতেনতাই পারে এই মরণঘাতি করোনা ভাইরাসকে রুখতে। কিন্তু এই জনসচেতনতাই বিএনপির চেয়ে পিছিয়ে রয়েছেন ক্ষমতাসীনরা। যদিও তারা অনেকদিন ধরে ক্ষমতায় রয়েছেন। তারপরেও তারা জনসাধারণের কল্যাণে পিছিয়ে রয়েছেন।

জানা যায়, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নারায়ণগঞ্জে প্রথম এগিয়ে আসেন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার। তিনি গত ১৫ মার্চ করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নারায়ণগঞ্জ শহরে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেন। এদিন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারের নেতৃত্বে শহরের চাষাঢ়া এলাকার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে থেকে শুরু করে ২নং রেলগেইট পর্যন্ত এই লিফলেট বিতরণ করা হয়। একই সাথে তিনি পরদিন নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়াতেও করোনা প্রতিরোধে জনসচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেছেন। আদালতপাড়াতেও তিনি প্রথম জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম শুরু করেন।

এরপর করোনা প্রতিরোধে গত ১৮ মার্চ শহরে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির উদ্যোগে জনসচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করা হয়।

এদিকে বিএনপির দুই নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে শুরু থেকেই মাঠে রয়েছেন। আর ওই দুইজন কাউন্সিলর হলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের সভাপতি ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ এবং মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শওকত হাসেম শকু।

১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ তার ওয়ার্ডের বিভিন্ন স্থানে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করার পাশাপাশি নিজ উদ্যোগেই হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা জীবনামুক্ত করণ জেল তৈরী শুরু করেন। দেশের অন্যতম শীর্ষ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বিদ্যানন্দের দেয়া ফর্মূলা অনুসরণ করে ৫০ এম এল এর ১০ হাজার বোতল হ্যান্ড স্যানিটাইজার প্রস্তুত করে বিতরণ করার শুরু করেন। সেই সাথে তিনি জনসাধারনের মাঝে জনসচেতনতা সৃষ্টি করার লক্ষ্যে লিফলেট বিতরণ করেছেন।

খোরশেদ জানান, আমার ১৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের জন্য আমি ইতোমধ্যে নিজেই হ্যান্ড স্যানিটাইজার প্রস্তত করে তা আমার কার্যালয় থেকে সকলকে দিচ্ছি। প্রতিদিন দেড় থেকে দুই হাজার বোতল ৫০ এমএল পরিমানের এলাকাবাসী নিয়ে যাচ্ছেন। এতে আমি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বিদ্যানন্দের ফর্মূলা ব্যবহার করেছি।

একই সাথে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে গত ১১ মার্চ নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ১২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শওকত হাসেম শকুর কার্যালয় থেকে থেকে শুরু করে তার এলাকায় বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন। সেই সাথে তার স্ত্রী মহানগর বিএনপির মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা দীপা হাসেমকেও এই কার্যক্রমের সাথে সম্পৃক্ত করান। তার এই কার্যক্রম এখনও চলমান রয়েছে। ২১ মার্চ তাঁরা বিতরণ শুরু করেন হেস্কোসল। যা এখনও চলমান রয়েছে।

সবশেষ ২৪ মার্চ নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়াতে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে জনসাধারণের মাঝে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান।

এভাবেই নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে এগিয়ে আসতে শুরু করেছেন। কিন্তু সে তুলনায় পিছিয়ে রয়েছেন বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা। তারা বিভিন্ন সভা সমাবেশে বক্তৃতা দিয়ে বেড়ালেও কোনো কার্যক্রমে তাদের খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। দুই একটি সংগঠন ছাড়া অন্য কোন নেতা কিংবা দলের পক্ষ থেকে পালিত হওয়া কোন কার্যক্রমের দেখা মিলেনি।

লিফলেট বিতরণ কার্যক্রমের শুরুতে বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেছিলেন, আমরা মনে করি করোনা ভাইরাস একটি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ইস্যু। বিএনপি কোন সময় জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ইস্যুতে ঘরে বসে থাকে নাই। বিএনপি ক্ষমতায় নেই। এই শেখ হাসিনা সরকারের অনেক অত্যাচার নির্যাতনের মধ্যে আছে বিএনপি। তারপরেও কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা গ্রামগঞ্জে ছড়িয়ে পড়েছি কিভাবে করোনা ভাইরাসকে প্রতিরোধ করা যায়।


বিভাগ : রাজনীতি


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও